খুলনার-রুপসায় দূর্বৃত্তরা এক বৃদ্ধকে দুই হাতের কবজি কেটে বিচ্ছিন্ন করেছে

446

ওই কৃষকের নাম মো. সাদ্দাম হোসেন শেখ (৬৫)। তাঁকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি বর্তমানে আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

পুলিশ, স্থানীয় লোকজন ও ভুক্তভোগীর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে সাদ্দাম হোসেন ও জাবুসা দক্ষিণ পাড়ার লোকমান শেখের মধ্যে। আত্মীয়তার সম্পর্ক রয়েছে তাঁদের মধ্যে। ওই জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরেই সাদ্দাম হোসেনের ওপর হামলা হতে পারে বলে ধারণা করছেন স্থানীয়রা।সাদ্দাম হোসেনের মেজো ছেলে মো. নাসিম শেখ প্রথম আলোকে বলেন, আজ ভোরে প্রতিদিনের মতোই তাঁর বাবা বাড়ি থেকে বেরিয়ে সেতুর নিচে থাকা দোকানে চা খেতে যাচ্ছিলেন। কিছু সময় পর স্থানীয়রা এসে খবর দেয় বাবাকে কুপিয়ে ফেলে রেখে গেছে দুর্বৃত্তরা। বাড়ি থেকে তাঁরা দৌড়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বাবাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

নাসিম শেখ বলেন, বাবা ও স্থানীয় লোকের মুখে শুনেছেন লোকমান শেখের ছেলে কামাল, ভাতিজা রাজুসহ ৭ জন ওই হামলা করেছে। এক মিনিটেরও কম সময়ের মধ্যে তাঁরা বাবার হাতের কবজি কেটে ফেলে ও পায়ের রগ কেটে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে রূপসা থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

এদিকে লোকমান হোসেন ও তাঁর পক্ষের কাউকে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের এক নম্বর ইউনিটের প্রধান প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস বলেন, সাদ্দাম হোসেনের হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। তাঁর দুই পায়ের প্রধান শিড়াই কেটে গেছে। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে পায়ের কাটা কিছুটা ঠিক করা সম্ভব, তবে পুরোপুরি সুস্থ হতে অনেক সময় লাগবে।

রূপসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে ওই হামলা করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের আটকের চেষ্টা চলছে। ( সূত্র : প্রথম আলো)