খুলনায় ব্যবসায়ী নিয়ামুল হত্যার প্রধান আসামি হান্নান গ্রেফতার

578

খুলনা ব্যুরো  :

খুলনার-রূপসা উপজেলার দেয়াড়ায় গাছের সঙ্গে বেঁধে ব্যবসায়ী শেখ নিয়ামুল করিমকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার প্রধান আসামি শেখ মো. হান্নান ও তার সহযোগি শেখ জুনায়েদকে অবশেষে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার প্রায় দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর পর পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি বুধবার দিনগত গভীর রাতে রাজাপুরস্থ ভৈরব নদের ঘাট এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে। বৃহস্পতিবার গ্রেফতারকৃতদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা খুলনা সিআইডি’র ইন্সপেক্টর মীর আতাহার আলী বিষয়টি নিশ্চিত করে এ প্রতিবেদককে বলেন, নিয়ামুল হত্যা মামলার ১নং আসামি শেখ মো. হান্নান ও ২নং আসামি হান্নানের ভাই শেখ জুনায়েদ রাজাপুরস্থ ভৈরব নদের ঘাট এলাকায় অবস্থান করছে- মর্মে গোপন খবর পেয়ে বুধবার রাত ২টার দিকে সিআইডি’র একটি টিম নিয়ে তিনি সেখানে অভিযান পরিচালনা করেন। এক পর্যায়ে তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। গ্রেফতারকৃতদের রিমান্ডে নিয়ে হত্যাকান্ডের বিষয়ে আরও বিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর বিকেলে রূপসা উপজেলার দেয়াড়া গ্রামের খেজুরতলা সংলগ্ন জুনায়েদের ডকইয়ার্ডে একটি বট গাছের সঙ্গে বেঁধে মৎস্য ব্যবসায়ী শেখ নিয়ামুল করিমকে নির্যাতন করে হান্নান ও তার বাহিনীর সদস্যরা। পরদিন ৩১ অক্টোবর সকাল সাড়ে ৯টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। নিহত নিয়ামুল করিম স্থানীয় স্থানীয় ফরেন মার্কেট এলাকার শেখ সাইদুল করিমের পুত্র। এ ঘটনায় ৩১ অক্টোবর রাতে নিহতের পিতা শেখ সাইদুল করিম বাদি হয়ে রূপসা থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় প্রজন্ম লীগের বহিস্কৃত নেতা হান্নান শেখকে প্রধান করে ১৩ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক অজ্ঞাত পরিচয়ের আরও ১০/১৫ জনকে আসামি করা হয়। এজাহারভূক্ত অপর আসামিরা হচ্ছে হান্নানের সহোদর শেখ জুনায়েদ ও শেখ জাহিদ, মিরাজ হাওলাদার, মো. জিয়াদ, মো. মিজানুর রহমান, সাইফুল ইসলাম (বড়), নাদিম পেয়াদা, শামীম, কল্লোল, রিয়াদ, মো. রাবিক ও নূরুজ্জামান। এর মধ্যে পুলিশ এবং সিআইডি এজাহারভূক্ত আসামি সাইফুল ইসলাম (বড়), নাদিম পেয়াদা ও নূরুজ্জামান এবং সন্দেহভাজন হিসেবে মুরাদ হোসেন নামে আরও একজনকে গ্রেফতার করে।