খুলনার মানববন্ধনে বক্তারাঃ- নুশরাতের খুনি সিরাজউদ্দোলাকে জনসম্মুখে ফাঁসি কার্যকর করতে হবে

243

খুলনা ব্যুরো

নুশরাতের খুনি সিরাজউদ্দোলাকে জনসম্মুখে ফাসি কার্যকর করতে হবে। শুধু নুসরাতই নয় পূর্বের সকল ধর্ষনের সাথে জড়িতদের দ্রুত্ব ফাসি কার্যকর করতে হবে। সোমবার (১৫ এপ্রিল) বেলা এগারটায় যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় গায়ে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে দেয়া মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে খুলনায় মানববন্ধনে বক্তারা এ কথা বলে। এ সময় বক্তারা আরো বলেন, খুলনায় যে সকল ধর্ষনের মামলা রয়েছে তা দ্রুত্ব রায় দিতে হবে।
মহানগরীর গল্লামারির লায়ন্স স্কুলের সামনে সোনালী দিন প্রতিবন্ধি সংস্থা ও উপকূল উন্নয়ন ভাবনার যৌথ উদ্যোগে এবং ২৫ নম্বর ওয়ার্ড নাগরিক ফোরামের সহযোগিতায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সোনালী দিন প্রতিবন্ধি সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ইশরাত আরা হীরার সভাপতিত্বে মানববন্ধনটি পরিচালনা করেন উপকূল উন্নয়ন ভাবনার সভাপতি এম সাইফুল ইসলাম। এসময় রাফিকে যৌন হয়রানি ও অগ্নিসংযোগের মাধ্যমে নৃশংসভাবে হত্যাকারীর ফাঁসির দাবি ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান বক্তারা। মানববন্ধনে বক্তৃতা করেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি রেজিষ্টার আব্দুর রহমান, লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের সহ প্রধান শিক্ষক গাউস উদ্দিন শিকদার, নিরাপদ সড়ক চাইয়ের খুলনা জেলা সাধারন সম্পাদক এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) এর বিভাগীয় সভাপতি এম এ কাশেম, সিপিবির জেলা সম্পাদক মন্ডলির সদস্য সুতপা বেদঞ্জ, নারী নেত্রী সিলবি হারুন, বৃহত্তর আমরা খুলনাবাসীর সহ সভাপতি সৈয়দ মোসাদ্দেক হোসেন বাবলু, ২৫ নং ওয়ার্ড নাগরিক ফোরাম সভাপতি মোঃ জয়নাল আবেদিন বাবলু, মোঃ সবুজুল ইসলাম, মো জেড এন সুমন, ২৭ নং ওয়ার্ড নাগরিক ফোরামের সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আলি হাফিজ, ২৫ নং ওয়ার্ড নাগরিক ফোরামের এ্যান্থনি সুশিল ফলিয়া ,শেখ হেদায়েত হোসেন, মোঃ আব্দুর রাজ্জাক, বেদৌরা আফরোজ, শিরিনা পারভীন, লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক রবিউল ইসলাম, মোঃ শহিদুল ইসলাম,সঞ্জয় পাল, ভিভূতিভূষন বাইন, মো রাকিব উদ্দিন, উপকূল উন্নয়ন ভাবনার প্রচার সম্পাদক শেখ ইয়াছিন আলম, উপকূল উন্নয়ন ভাবনার মোল্লাহাট সভাপতি শামিমা আক্তার আখি, নির্বাহী সদস্য আল মামুন ,তানভীর আহমেদ, প্রানডোরের সভাপতি নাসিব আহসান রুমি, জেসমিন আক্তার জুই প্রমুখ।
উল্লেখ্য, গত ৬ এপ্রিল (শনিবার) বেলা এগারটায় নুসরাত আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসায় যান। এ সময় মাদরাসার এক ছাত্রী তার বান্ধবী নিশাতকে ছাদের ওপর কেউ মারধর করছে- এমন সংবাদ দিলে তিনি ওই বিল্ডিংয়ের চার তলায় যান। সেখানে মুখোশ পরা চার-পাঁচজন তাকে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে মামলা ও অভিযোগ তুলে নিতে চাপ দেয়। নুসরাত অস্বীকৃতি জানালে তারা তার গায়ে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। চারদিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মারা যান নুসরাত জাহান রাফি।