নির্বাচনে ভোট প্রদান নিয়ে সংশয়, আতঙ্কে কমলাপুর ইউনিয়নবাসী

190

জুয়েল ডি সানি/ আরিফুর রহমান সেতু

নির্বাচন কমিশনের তফশিল অনুযায়ী আগামী ১১ই জুলাই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পটুয়াখালীর সদর উপজেলার পুনঃগঠিত কমলাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। প্রতীক বরাদ্দ হবার পূর্বেই ইউনিয়নে শুরু হয়েছে প্রভাব বিস্তারের লড়াই। ইতিমধ্যেই দুই পক্ষের প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইউনিয়নের ধরান্দী বাজারে সংঘর্ষ হয়।

এলাকা ঘুরে সরেজমিনে জানা যায়, এলাকায় ৯টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে প্রায় সবগুলোই ঝুঁকিপূর্ণ বলে মন্তব্য করছেন এলাকার সাধারন ভোটারগন। পাশাপাশি রয়েছে নির্বাচনে ভোট প্রদান নিয়ে সংশয়। এই সংশয়ের ভয় না কাটতেই প্রতীক বরাদ্দের পূর্বেই প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঘটে গেছে সংঘর্ষের ঘটনা। বর্তমান ইউ পি চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মৃধা এবং চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ফারুক খান এর সাথে প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয়পক্ষের অনেকে আহত হলেও সাধারন মানুষ এবং বাজারের ব্যবসায়ীরাও আহত হয়।

এ বিষয়ে বর্তমান কমলাপুর ইউপি চেয়ারম্যান এবং বর্তমান চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব আব্দুস সালাম সি আই এন টিভি ২৪ কে বলেন, আমি মাত্র চিকিৎসা নিয়ে ঢাকা থেকে এলাকায় আসলাম। আপনাদেরকে ধন্যবাদ যে আপনারা আমার খোঁজ খবর নিতে এসেছেন। আমরা সেদিন শান্তিপূর্ণ ভাবে বাজারে সবার কাছে দোয়া চাচ্ছিলাম। ২৩ শে জুন সন্ধ্যায় হটাত করে ফারুক খান এবং তার লোকজন আমাকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী হামলা করে। হামলায় আমি সহ আমার ভাই, আমার ভাগিনা এবং আমার প্রায় ১৮ জন কর্মী সহ বেশ কিছু বাজারের ব্যবসায়ী আহত হয়েছে। এ বিষয়ে আমি ইতিমধ্যে মামলা দায়ের করেছি। আমার ভাগিনা বর্তমানে আই সি ইউ তে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আমার ছোট ভাইয়ের মাথায় ৯টি সেলায় এবং হাত ভেঙে গেছে, আমার মাথায় ছয়টি সেলাই হয়েছে। আমি আপনাদের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন এবং জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নিকট জানাতে চাই, আপনারা জনগনের
স্বপ্নে বাধা হয়ে দাঁড়াবেন না। এই ইউনিয়নের জনগন একটি নিরপেক্ষ,অবাধ ও উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচনী উৎসবে ভোট প্রদান করতে চায় । বর্তমানে যে ৯ টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে তার সবগুলোই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। আশা করি জনগনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন আপনারা উপহার দিবেন
এটাই আপনাদের নিকট প্রত্যাশা। এই ঘটনার বিষয়ে ফারুক খানের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে মুঠোফোনে পাওয়া যায় নি।