ব্রিজ নির্মাণের আগেই ভেঙ্গে পড়লো

188

ঝিনাইদহ শহরের নবগঙ্গা নদীর ওপর ধোপাঘাটা এলাকায় সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীন ১২০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ব্রিজের দু’টি বৃহৎ আকারের গার্ডার ভেঙ্গে পড়েছে। এতে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন ২০ জন শ্রমিক।

আজ রোববার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। ব্রিজে গার্ডার ভেঙ্গে পড়ার বিকট শব্দে এলাকা কেঁপে ওঠে।

ঝিনাইদহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের একটি সুত্র জানায়, জাইকার অর্থায়নে মনিকা লিমিটেড পিডব্লিউ ০৩ প্যাকেজের আওতায় ব্রিজটি নির্মাণ করছে। দেড় বছর ধরে পাইলিং ও মাটি ভরাটের কাছ শেষে এখন ব্রিজের দুই পাশে গার্ডার দেয়ার কাজ চলছিল।

কোম্পানির নির্বাহী প্রকৌশলী বিমান সাহেব মুঠোফোনে জানান, জগ দিয়ে গার্ডার দু’টি স্থানান্তর করার সময় অসাবধানতাবশত: নিচে পড়ে ভেঙে যায়। এ সময় শ্রমিকরা দুপুরের খাবার খেতে যাওয়ায় তারা রক্ষা পান।

তবে এতে কোম্পানির প্রায় ৫০ লাখ টাকার ক্ষতি হবে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, পুরাতন জরাজীর্ণ জিনিস দিয়ে কাজ করছে। কাজে বিভিন্ন ত্রুটি রয়েছে। এসব কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

পরিদর্শন করে দেখা গেছে, ব্রিজের কাজে ব্যাবহৃত পাইপ ও সার্টারগুলো দীর্ঘদিনের পুরানো ও মরিচা ধরা। প্রায় দেড়শ টন ওজনের দু’টি গার্ডারের ভর সইতে না পারায় ভেঙে গেছে।

এ ব্যাপারে প্রজেক্ট ম্যানেজার আবদুস সালাম গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি। তবে সাইট ইঞ্জিনিয়ার শাহাদত হোসেন জানান, মনে হয় টেনিশিয়ানদের কাজে কোন ত্রুটি ছিল। ঝিনাইদহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নজরুল ইসলাম জানান, আমরা এ কাজের দেখভাল করছি না। ঢাকা থেকে একটি প্রজেক্টের মাধ্যমে কাজটি হচ্ছে। এই প্রজেক্টের একটি অফিস যশোরে আছে। আমরা ব্রিজ নির্মাণের কোন খোঁজই রাখি না, কারণ এটা আমাদের কোন প্রজেক্ট নয়।সৌজন্যে : মানবজমিন