খুলনায় মায়ের ডাক’র আহবানে গুমের শিকার ব্যক্তিদের স্মরণে আন্তর্জাতিক দিবস পালন

146

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা
গুম একটি মানবতা বিরোধী অপরাধ। আন্তর্জাতিক আইনেও এটিকে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। অথচ: দেশে বর্তমানে গুম ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। বিশেষ করে ভিন্ন মতাবলম্বী রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীরা গুমের শিকার হচ্ছেন বেশি। একটি স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক দেশে গুম, অপহরণ ও বিচারবহির্ভূত হত্যাসহ কোন ধরণের মানবাধিকার লঙ্ঘণ স্বাভাবিক ভাবে মেনে নেয়া যায়না। বক্তারা গুমের শিকার সকল নাগরিককে অবিলম্বে তাদের পরিবারের কাছে ফেরত দেওয়ার দাবি জানান।
শুক্রবার (৩০ আগষ্ট) গুমের শিকার ব্যক্তিদের স্মরণে আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার্স নেটওয়ার্ক ‘মায়ের ডাক’ খুলনা আয়োজিত গুম বিরোধী র‌্যালী ও মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তারা এসব কথা বলেন। র‌্যালী ও মানববন্ধন কর্মসূচীতে সভাপতিত্ব করেন সিনিয়র সাংবাদিক কাজী মোতাহার রহমান বাবু।
হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার ও সাংবাদিক মুহাম্মদ নূরুজ্জামানের পরিচালনায় কর্মসূচীতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট শেখ নুরুল হাসান রুবা। বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা খুলনা জেলা শাখার কো-অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট মোমিনুল ইসলাম, মানবাধিকার কর্মী শেখ আব্দুল হালিম এবং ২০১৬ সালের ৪ আগস্ট যশোরের বেনাপোল থেকে গুম হওয়া কলেজ ছাত্র মো. রেজোয়ান হোসেনের বড় ভাই মো. রিপন হোসেন ও স্বজন মোছাম্মৎ সেলিনা বেগম।
এর আগে দিবসটি উপলক্ষে বেলা ১১ টায় প্রেস ক্লাব খুলনার সামনে থেকে র‌্যালী বের হয়ে শান্তিধাম মোড় হয়ে জাতিসংঘ পার্কের সামনে গিয়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধন চলাকালে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তারা আরও বলেন, দেশে ২০০৯ সাল থেকে গুমের ঘটনা ভয়ানক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০০৯ সাল থেকে ২০১৯ সালের ২৯ আগষ্ট পর্যন্ত ৫০৭ জন গুমের শিকার হয়েছেন। এতে দেশের সাধারণ নাগরিকরাও নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়েছেন। এ পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে হলে সুষ্ঠু গণতন্ত্র চর্চা এবং মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য সর্বস্তরে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।
কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবীদ ও নারী নেত্রী রেহানা আখতার, সিনিয়র সাংবাদিক আব্দুল খালেক আজীজী, মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন (এমইজে) খুলনার সাধারণ সম্পাদক হাসান আহমেদ মোল্লা, খুলনা পোল্ট্রি ফিশ ফিড শিল্প মালিক সমিতির মহাসচিব এস.এম সোহরাব হোসেন, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন আন্দোলনের চেয়ারম্যান শেখ মো. নাসির উদ্দিন, ব্লাস্ট খুলনা ইউনিটের কো-অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট অশোক কুমার সাহা, পরিবেশ সংগঠন ছায়াবৃক্ষের প্রধান নির্বাহী মাহবুব আলম বাদশা, খুলনা সাহিত্য সংস্থার কাওসারী জাহান মঞ্জু, ইসমত আরা কাকন, শাহানা পারভীন শিল্পী, খুলনা বিভাগীয় মটরসাইকেল ম্যাকানিক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ আইনুল হক, শিক্ষক প্রদীপ কুমার দাস, সাংবাদিক মো. রায়হান মোল্লা, মিশারুল ইসলাম মনির, মো. আমিরুল ইসলাম, খুলনা জেলা ব্লাড ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ ফারুক, মোল্লা কামাল মুনির, ইউনাইটেড ফাইন্যান্স লিমিটেড’র অপূর্ব বিশ্বাস, হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডারস মোঃ জামাল হোসেন, জিএম রাসেল ইসলাম, মো. শহিদুল ইসলাম, মো. আহাদ আলী, মো. শওকত হোসেন, মো. সাকিব হাসান, শিক্ষার্থী মো. বাদশা শেখ, মো. রায়হান শেখ, মো. সাগর শেখ, মো. মাকসুদুর রহমান, মো. সজীব, মো. দ্বীন ইসলাম, মো. শামসুল হক, ইমাম হোসেন মারুফ, মো. রাকিব শেখ, মো. অন্তর শেখ প্রমূখ।