ঝিনাইদহে ভয়াবহ করোনা ভাইরাসে ২১ জন শনাক্তঃঝুঁকিতে সাধারন জনগন

37
মোঃ আল আমিন খান, ব্যুরো চিফ-খুলনা
নোভেল করোনা ভাইরাসের ভয়াল ছোবলে ঝিনাইদাহ জেলা। সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের জন্য গোটা জীবন থমকে গিছে সেখানে বাংলাদেশেও একই অবস্থা। বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া সাধারন মানুষ । সরকার থেকে বিভিন্ন ত্রান দেওয়া হলেও পৌঁছায়নি অনেকের ঘরে। যার ফলে এক শ্রেণীর মানুষ অনাহারে দিন কাটাচ্ছে। প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা শনাক্তকৃত রুগি, মারা যাচ্ছে অনেকেই। দেশের এই মহামারীতে জীবন বাজি রেখে নিয়মিত সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত প্রশাসনের সাথে কাজ করে যাচ্ছে সাংবাদিকরা।
ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন সেলিনা বেগম বলেন, ঝিনাইদাহ ছয়টি উপজেলা নিয়ে গঠিত, প্রতিটা উপজেলায় করোনা ভাইরাসের রুগি শনাক্ত করা হয়েছে। মহেশপুর উপজেলায় ১ জন, কোটচাঁদপুর ২ জন, হরিণাকুন্ডু ১ জন, সদর উপজেলায় ৪ জন, শৈলকুপা ৭ জন, ও কালিগঞ্চে ৬ জন মোট ২১ জন করোনা পজেটিভ রিপোর্ট পাওয়া গিছে। তিনি আরো বলেন সরকারের নির্দেশ ছিলো ঘরে থাকা বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বের না হওয়া। জন প্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে বলা ছিলো এক জায়গার লোক অন্য জায়গাতে যাবেন না আবার আসবেন না।
কথা হয় ঝিনাইদাহ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ বদরুদ্দোজা শুভ এর সাথে।  তিনি জানান, আমরা শতভাগ চেষ্টা করছি মানুষকে সচেতনতার জন্য, লিফলেট মাইকিং বিভিন্ন উপায়ে সকলকে সতর্ক থাকা বলা হচ্ছে। সকলের উচিত নিজ নিজ জায়গা থেকে সচেতন হওয়া
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন,মানুষ এখনও সচেতন হচ্ছে না, কিছু ব্যবসায়ীরা কোন নিয়ম নীতি মানে না। বিনা প্রয়োজনে অনেকেই ঘর থেকে বাইরে আসে দেখতে। এভাবে চলতে থাকলে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। প্রশাসনের আরো কঠোর পদক্ষেপ ই পারে মানুষকে সচেতন করতে। তাই প্রশাসনের সহযোগিতা আশা করে এলাকাবাসী